BrandsView All

Show More Brands
November 22, 2022

BestMaza.Org

Unboxing | Bengali Daily Tech News | Reviews By TechnoMaza

PM Kisan: এবার সরকারি ওয়েবসাইট থেকেই ডেটা ফাঁস! ১১ কোটি কৃষকের আধার তথ্য ফাঁসের অভিযোগ

Spread the love

বিভিন্ন অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে ডেটা ফাঁসের ঘটনা আমরা আকছার শুনে থাকি। তবে এবার এই গেরোয় নাম জড়ালো সরকারি প্ল্যাটফর্মের। আসলে কৃষকরা যাতে কৃষিকাজ থেকে অধিক মুনাফা অর্জন করার পাশাপাশি তাদের জীবনযাত্রার মান আরো উন্নত করতে পারেন, সেজন্য সরকার বিভিন্ন প্রকল্প চালু করেছে। এরকমই একটি প্রকল্প হল ‘প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি যোজনা’ (Pradhan Mantri Kisan Samman Nidhi Yojana), যা পিএম কিষাণ যোজনাও (PM Kisan Yojana) নামেও পরিচিত। আধার (Aadhaar) কার্ডকে কাজে লাগিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করলে এই প্রকল্পের আওতায় কৃষকরা বছরে ৬,০০০ টাকা করে সরকারি সহায়তা পান। সেক্ষেত্রে সম্প্রতি এক রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে যে, পিএম কিষাণ যোজনার ওয়েবসাইটে একটি ত্রুটির দরুন সেখান থেকে ১১ কোটি কৃষকের আধার কার্ডের ডেটা ফাঁস হয়েছে। হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন! অতুল নায়ার নামের এক সিকিউরিটি রিসার্চার সর্বপ্রথম এই খবরটি প্রকাশ্যে এনেছেন।

আপনাদেরকে জানিয়ে রাখি, নায়ার কেরালা পুলিশের সাইবারডোমের জন্য স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করেন। তিনি সম্প্রতি তাঁর পোস্টে জানিয়েছেন যে, পিএম-কিষাণ ওয়েবসাইটের ড্যাশবোর্ড ফিচারে একটি এন্ডপয়েন্ট রয়েছে, যেখান থেকে অঞ্চল-ভিত্তিক কৃষকদের আধার নম্বর ফাঁস হচ্ছে। এতে, সাইবার আক্রমণকারীরা খুব সহজেই উল্লিখিত ডেটার অপব্যবহার করতে পারে। আর সত্যি সত্যিই যে ডেটা ফাঁস হচ্ছে, তার অকাট্য প্রমাণও হাতে পেয়েছেন বলে তিনি তার পোস্টে উল্লেখ করেছেন। এমনকি অতুল মিডিয়াম (Medium)-এ এই তথ্য ফাঁসের বিষয়টি উল্লেখ করে একটি স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন।

 

ডেটা ফাঁস হয়েছে কয়েক মাস আগেই

বলে রাখি, এই সমস্যাটি এখন ঠিক করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে এই দুর্ঘটনা আজকের নয়। রিপোর্ট অনুযায়ী, নায়ার গত ২৯ জানুয়ারি ইন্ডিয়ান কম্পিউটার এমার্জেন্সি রেসপন্স টিমকে (সিইআরটি-ইন) ওয়েবসাইটটির ত্রুটির কথা জানিয়েছিলেন। তারপর সমস্যাটি সমাধানের উদ্দেশ্যে সিইআরটি-ইন নায়ারের রিপোর্টটিকে দায়িত্বশীল কর্তৃপক্ষের কাছে ফরওয়ার্ড করে। এরপর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি সিইআরটি-ইন সংস্থার তরফে নায়ারকে জানানো হয় যে, দায়িত্বশীল সংস্থাটি এখনও ওয়েবসাইটের দুর্বলতার বিষয়টি নিশ্চিত করেনি, তবে ঘটনাটির যথাযথ তদন্তের জন্য জোরকদমে কাজ চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

এরপর সম্প্রতি ২৮ মে যখন নায়ার আবার ওয়েবসাইটটি চেক করেন, তখন তিনি বুঝতে পারেন যে ইতিমধ্যেই সমস্যাটির সমাধান করা হয়েছে, তবে ঠিক কবে নাগাদ তা করা হয়েছে সেটা এখনো স্পষ্ট নয়। এবং সেইসাথে জানুয়ারি থেকে মে মাসের মধ্যে কৃষকদের আধার সংক্রান্ত কোনো ডেটা ওয়েবসাইট থেকে সরানো হয়েছে কি না, সে বিষয়েও এখনো নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি। তবে একবার যখন কর্তৃপক্ষের কাছে খবর পৌঁছেছে, তখন দেশের সমস্ত কৃষকদের সুরক্ষার স্বার্থে তারা যথাযথ পদক্ষেপ নেবেন বলেই আশা করা যায়।

%d bloggers like this: