BrandsView All

Show More Brands
December 2, 2022

BestMaza.Org

Unboxing | Bengali Daily Tech News | Reviews By TechnoMaza

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: নয়া আইফোন প্রো কেনা লাভজনক হবে নাকি আইফোন ১৩ প্রো

Spread the love

প্রতি বছর নতুন আইফোন সিরিজের সাথে হাজির হওয়া একটা প্রবণতায় পরিণত হয়েছে আমেরিকা ভিত্তিক টেক জায়ান্ট Apple -এর কাছে। যেমন গত বছর সেপ্টেম্বরে iPhone 13 সিরিজ উন্মোচন করার ঠিক এক বছরের মাথায় গত ৭ই সেপ্টেম্বর iPhone 14 লাইনআপকে অফিসিয়াল করলো সংস্থাটি। যদিও নবাগত সিরিজের টপ-এন্ড মডেলগুলি অর্থাৎ iPhone 14 Pro ও 14 Pro Max পূর্বসূরির তুলনায় পরিবর্তিত ডিসপ্লে ডিজাইন, উন্নত প্রসেসর তথা অপারেটিং সিস্টেম এবং ক্যামেরা ফ্রন্ট সহ এসেছে। ফিচার-কেন্দ্রিক কয়েকটি তারতম্য বিদ্যমান থাকলেও, সিরিজ দুটির ‘Pro’ মডেলগুলির মধ্যে দামের পার্থক্য এমন কিছু ব্যাপক নয়। ফলে ইদানিং Apple-প্রেমীদের মধ্যে একটি বিষয়ে বিশেষ তর্ক-বিতর্ক চলছে যে, ১ বছরের পুরোনো তথা বর্তমানে সেলে কিছুটা কম মূল্য উপলব্ধ iPhone 13 Pro কেনা সঠিক হবে, নাকি নতুন ফিচার ব্যবহারের অভিজ্ঞতা লাভের জন্য iPhone 14 Pro ক্রয় করার কথা বিবেচনা করে দেখা উচিত! তাই আপনাদের মনের জিজ্ঞাসা মিটাতে আজ আমরা এই প্রতিবেদনে iPhone 14 Pro এবং iPhone 13 Pro ফোন দুটির মধ্যে দাম ও ফিচারগত তুলনামূলক আলোচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: ডিসপ্লে, সেন্সর

সার্জিক্যাল গ্রেড স্টেইনলেস স্টিল ব্যবহৃত আইফোন ১৪ প্রো ফোনে ৬.১-ইঞ্চির সুপার রেটিনা XDA অলওয়েজ অন OLED ডিসপ্লে দেওয়া হয়ছে। এই ডিসপ্লে – অ্যাপলের প্রোমোশান ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং ২০০০ নিট পিক ব্রাইটনেস সাপোর্ট করে। আবার, জনপ্রিয় নচ এর বদলে আলোচ্য মডেলটি প্রথমবার পাঞ্চ-হোল ডিজাইনের ডিসপ্লে স্টাইলের সাথে এসেছে, যা সংস্থার ভাষায় ডায়নামিক আইল্যান্ড নামে অভিহিত। নিরাপত্তার জন্য এই ফোনে পাওয়া যাবে ফেস আইডি।

আইফোন ১৩ প্রো ফোনে আছে একটি ৬.১-ইঞ্চির (২৫৩২x ১১৭০ পিক্সেল) সুপার রেটিনা XDA অল স্ক্রিন OLED ডিসপ্লে প্যানেল। এই ডিসপ্লে – ProMotion ১২০ হার্টজ অ্যাডাপটিভ রিফ্রেশ রেট, ১,০০০ নিটস পিক ব্রাইটনেস, ৪৬০ পিপিআই পিক্সেল ডেনসিটি, HDR ডিসপ্লে, ট্রু টোন, হেপটিক টাচ ও ওলিওফোবিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট রেজিস্ট্যান্স সহ এসেছে। তদুপরি, পূর্বসূরি ও উত্তরসূরির সিকিউরিটি ফিচার একসমান।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: প্রসেসর, অপারেটিং সিস্টেম, র‌্যাম, স্টোরেজ

পারফরম্যান্সের জন্য আইফোন ১৪ সিরিজের এই ‘প্রো’ হ্যান্ডসেটে ব্যবহার করা হয়েছে সংস্থার নিজস্ব তথা লেটেস্ট এ১৬ বায়োনিক (A16 Bionic) চিপসেট। সংস্থার দাবি অনুসারে, এটি তাদের সর্বাধিক শক্তিশালী প্রসেসর। এতে দুটি হাই পারফরম্যান্স কোর ও চারটি হাই এফিসিয়েন্সি কোর উপলব্ধ। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে উক্ত মডেলে আইওএস ১৬ মিলবে। এটি ৬ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং সর্বাধিক ১ টেরাবাইট ইন-বিল্ট স্টোরেজ অফার করে।

আইফোন ১৩ প্রো মডেলটি এ১৫ বায়োনিক (A15 Bionic) প্রসেসর সহ এসেছে। এই প্রসেসর ৬-কোর সিপিইউ, ৫-কোর জিপিইউ ও ১৬-কোর নিউড়াল ইঞ্জিনের সমন্বয়ে গঠিত। ফোনটি আইওএস ১৫ দ্বারা চালিত। আর স্টোরেজ হিসাব এতেও ৬ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং ১ টেরাবাইট পর্যন্ত রম পাওয়া যাবে।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: ক্যামেরা সেটআপ

ফটো ও ভিডিওগ্রাফির জন্য আইফোন ১৪ প্রো মডেলে পূর্বসূরিদের তুলনায় অনেক আপগ্রেড দেখা যাবে। যেমন, এতে – অপ্টিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশন (OIS) সহ ৪৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ৩এক্স অপ্টিঅ্যাল জুম সহ ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফটো সেন্সর এবং ১২০-ডিগ্রি ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স যুক্ত একটি ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে। এই রিয়ার ক্যামেরাগুলি দুর্দান্ত লো লাইট ফটোগ্রাফি অফার করবে বলে দাবি করে অ্যাপল। অন্যদিকে, ডিভাইসের সামনে এফ/১.৯ অ্যাপারচার সহ একটি ১২ মেগাপিক্সেলের ট্রুডেপ্থ সেলফি ক্যামেরা দেখা যাবে।

ছবি তোলার জন্য আইফোন ১৩ প্রো -তে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান। এই ক্যামেরাগুলি হল – ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফটো সেন্সর (এফ/২.৮ অ্যাপারচার), ১২ মেগাপিক্সেল ওয়াইড সেন্সর (এফ/১.৫ অ্যাপারচার) ও ১২০-ডিগ্রি ফিল্ড-অফ-ভিউ সহ ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড লেন্স (এফ/১.৮ অ্যাপারচার)। এই রিয়ার ক্যামেরাগুলি – ৩এক্স অপটিক্যাল জুম ইন, ২এক্স অপটিক্যাল জুম আউট, ৬এক্স অপটিক্যাল জুম রেঞ্জ ও ১৫এক্স ডিজিটাল জুম সাপোর্ট করবে। একই সাথে, LiDAR স্ক্যানারের দ্বারা নাইট মোড পোট্রেট এনাবল করা যাবে এবং সিনেমাটিক মোড (৩০এফপিএস), HDR ভিডিও রেকর্ডিং, ৪কে (4K) ভিডিও রেকর্ডিং, স্লো মোশন ভিডিও রেকর্ডিং প্রভৃতি ক্যামেরা ফিচার অফার করবে রিয়ার সেন্সর-ত্রয়ী। আবার সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য এতে এফ/২.২ অ্যাপারচার সহ ১২ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা বিদ্যমান থাকছে।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: ব্যাটারি, চার্জিং ক্যাপাসিটি

আইফোন ১৪ প্রো মডেলের ব্যাটারি ক্যাপাসিটি সম্পর্কিত কোনো তথ্য এখনো প্রকাশ্যে আনা হয়নি। তবে gsmarena প্রদত্ত রিপোর্ট অনুসারে এতে ৩,২০০ এমএএইচ পাওয়ারের লিথিয়ান-আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে, যা ১৫ ওয়াট ম্যাগসেফ ফাস্ট ওয়্যারলেস চার্জিং এবং ৭.৫ ওয়াট কিউআই (Qi) ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে। আর অ্যাপল আশ্বাস দিয়েছে যে, তাদের এই লেটেস্ট ডিভাইস ফুল চার্জে পুরো একদিনের ব্যাটারি ব্যাকআপ অফার করবে।

আইফোন ১৩ প্রো মডেলে ৩,০৯৫ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা ২২ ঘন্টা পর্যন্ত ভিডিও প্লেব্যাক, ৭৫ ঘন্টা পর্যন্ত অডিও প্লেব্যাক টাইম দেবে বলে সংস্থাটি স্বয়ং দাবি করেছে। আর এই ব্যাটারি – ১৫ ওয়াট পর্যন্ত ম্যাগসেফ ওয়্যারলেস চার্জিং, ৭.৫ ওয়াট পর্যন্ত কিউআই (Qi) ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করে বলেও জানা গেছে।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: পরিমাপ, আইপি রেটিং

আইফোন ১৪ প্রো IP68 সার্টিফাইড। ফলে এটি ধুলো প্রতিরোধে যেমন সক্ষম যেমনি ৬ মিটার গভীর জলের মধ্যে ৩০ মিনিট পর্যন্ত সক্রিয় থাকবে। এর পরিমাপ ১৪৭.৫x৭১.৫x৭.৯ মিমি এবং ওজন ২০৬ গ্রাম।

আইফোন ১৩ প্রো ফোনটিও IP68 রেটিং প্রাপ্ত। ফলে এটি জলের মধ্যে ৬ মিটার গভীরতায় ৩০ মিনিট পর্যন্ত ঠিক থাকবে। আর এর পরিমাপ ১৪৬.৭x ৭১.৫x ৭.৬৫ মিমি এবং ওজন ২০৩ গ্রাম।

iPhone 14 Pro vs iPhone 13 Pro: দাম

ভারতে আইফোন ১৪ প্রো মডেলের ১২৮ জিবি স্টোরেজ যুক্ত বেস ভ্যারিয়েন্টকে ১,২৯,৯০০ টাকা মূল্যে লঞ্চ করা হয়েছে। আর, ২৫৬ জিবি, ৫১২ জিবি এবং ১ টেরাবাইট স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম যথাক্রমে ১,৩৯,৯০০ টাকা, ১,৫৯,৯০০ এবং ১,৭৯,৯০০ টাকা ধার্য করা হয়েছে। এটি – স্পেস ব্ল্যাক, সিলভার, গোল্ড এবং ডিপ পার্পল কালার বিকল্পে এসেছে।

ভারতে আইফোন ১৩ প্রো মডেলের দাম শুরু হয়েছে ১,১৯,৯০০ টাকা থেকে। এই বিক্রয় মূল্য ফোনটির ১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের। এছাড়া ফোনটির ২৫৬ জিবি, ৫১২ জিবি ও ১ টিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম যথাক্রমে ১,২৯,৯০০ টাকা, ১,৪৯,৯০০ টাকা ও ১,৬৯,৯০০ টাকা রাখা হয়েছে। এটি – গ্রাফাইট, গোল্ড, সিলভার, সিয়েরা ব্লু কালারে পাওয়া যাবে।

%d bloggers like this: